কাল ঘোষণা, বিশ্বকাপ স্কোয়াড চূড়ান্ত ভারতের

প্রকাশিতঃ এপ্রিল ১৪, ২০১৯ । ১৫:৫৮
আপডেটঃ এপ্রিল ১৪, ২০১৯ । ১৫:৫৮

স্পোর্টস ডেস্কঃ সপ্তাহ খানেক আগেই জানা হয়ে গেছে, ১৫ এপ্রিল ঘোষণা করা হবে ভারতের বিশ্বকাপ স্কোয়াড। ১৫ সদস্যের এই স্কোয়াড ইতিমধ্যেই প্রায় নিশ্চিত হয়ে গেছে। ভারতের নির্বাচকদের হাতে এখন রয়েছে সেই ১৫ জনের নাম। সোমবার অপরাহ্নে বিশ্ববাসী জেনে যাবে কারা কারা রয়েছেন সেই ১৫ সদস্যের তালিকায়। তার আগে, ক্রিকেট ভক্তদের মধ্যে জ্বল্পনা-কল্পনা, কারা রয়েছেন সেই তালিকায়?

ভারতজুড়ে এখন একটাই বিষয়, সাধারণ নির্বাচন। সেই নির্বাচন তথা ইলেকটশন নিয়েই মেতে আছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় গণতান্ত্রিক দেশটি। কিন্তু আগামীকাল কিছু সময়ের জন্য সারা ভারক চোখ রাখবে ছোট্ট একটি সিলেকশনের দিকে। বিশ্বকাপে ভারতের কোন ১৫জন খেলবে, সেটাই হবে সবার আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দু।

ভারতের পনেরো জনের স্কোয়াড বি হবে বা হতে পারে, তা নিয়ে খুব বেশি চমকের অবকাশ নেই; কারণ ইতিমধ্যেই প্রায় ১১-১২জন নিশ্চিত হয়ে গেছে এই স্কোয়াডের। এদের নাম সবাই জানে। ক্রিকইনফো বলছে, ১১জন নিশ্চিত।

যতই বিরাট কোহলি বা নির্বাচকদের চেয়ারম্যান এমএসকে প্রসাদ আইপিএল পারফরম্যান্সকে গুরুত্বহীন বলুন না কেন, দলের ৩-৪টি জায়গা নির্ধারণে টি-টোয়েন্টির ফর্ম কোথাও না কোথাও একটা পরোক্ষ প্রভাব ফেলেই থাকে। অনেকেই মাথায় রাখতে চান না, ২০ ওভারের ক্রিকেট আর ৫০ ওভারের ক্রিকেট, দুটো সম্পূর্ণ আলাদা ব্যাপার।

টিম কী হতে পারে? ১৫ জনের টিমের একটা জাতীয় নির্বাচকরা অনেক আগেই মাথায় রেখেছিলেন। অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ঘরের মাঠে পাঁচ ম্যাচের একদিনের সিরিজে তার ইঙ্গিতও মিলে গিয়েছিল।

সে যাই হোক, তিন বিশেষজ্ঞ ওপেনারের কথা ভাবা হয়েছে। রোহিত-শিখরের সঙ্গে তৃতীয় ওপেনার হতে যাচ্ছেন নিশ্চিতভাবেই লোকেশ রাহুল। আইপিএলে দুরন্ত ফর্ম রাহুলের দাবি জোরালো করেছে মাত্র। ৯ ম্যাচে সবাইকেই এ বার খেলতে হবে, কাজেই শিখর বা রোহিত ফর্মে না থাকলে রাহুলকে ব্যবহার করা যাবে। শুধু ওপেনার নয়, প্রয়োজনে তিনে বা চারেও যেতে পারেন রাহুল।

মিডল অর্ডারে চার নম্বর নিয়ে বহু আলোচনা, জ্বল্পনা-কল্পনা। ২০১৭ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি থেকে ধরলে দশজনের বেশি ক্রিকেটারকে এই জায়গায় সুযোগ দেওয়া হয়েছে; কিন্তু কেউই থিতু হতে পারেননি। এখনও ধোঁয়াশা এই একটি মাত্র জায়গা নিয়ে।

বিরাট নিজে চারে যেতে পারেন, এমন সম্ভাবনা উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে ন। মিডল অর্ডারে বিরাট ছাড়াও থাকবেন কেদার যাদব। অলরাউন্ডারের স্লটে হার্দিক পান্ডিয়া নিশ্চিত। এ ছাড়া থাকার প্রবল সম্ভাবনা বিজয় শঙ্করেরও। ভালো ব্যাটিং ফর্ম, প্লাস হার্দিকের কভার হিসেবেও দারুণ কার্যকর হতে পারেন।

উইকেট কিপিংয়ে মহেন্দ্র সিং ধোনির ডেপুটি হওয়ার দৌড়ে দু’জন আছেন। রিশাভ পান্ত এবং দীনেশ কার্তিক। একটু হলেও এখন পাল্লা ভারি রিশাভের দিকে।

এবার প্রশ্ন, বোলিং ডিপার্টমেন্ট নিয়ে। স্পিনার হিসেবে কুলদীপ যাদব আর ইয়ুজবেন্দ্র চাহাল যাচ্ছেনই। তিন পেসার হিসেবে জশপ্রিত বুমরাহ, মোহাম্মদ শামি ও ভুবনেশ্বর কুমার নিশ্চিত। এরপর একটা জায়গাই বাকি থাকে। সেখানে চতুর্থ পেসার নেওয়া হতে পারে, কিংবা স্পিন অল-রাউন্ডার হিসেবে জাদাজাও আসতে পারেন।

কিংবা একজন অতিরিক্ত ব্যাটসম্যান। সেখানে অম্বাতি রাইডু বা শ্রেয়াস আয়ারের নাম আসতে পারে; কিন্তু জাদেজার অভিজ্ঞতা তার পক্ষে যেতেই পারে। বিশেষ করে ফিল্ডিং জাদেজাকে এনে দিতে পারে বিশ্বকাপের টিকিট।

ক্রিকইনফো যে ১১জনকে নিশ্চিত ধরে নিচ্ছে, তারা হচ্ছেন, ‘বিরাট কোহলি, রোহিম শর্মা, শিখর ধাওয়ান, মহেন্দ্র সিং ধোনি (উইকেটরক্ষক), কেদার যাদব, হার্দিক পান্ডিয়া, কুলদীপ যাদব, ইয়ুজবেন্দ্র চাহাল, জসপ্রিত বুমরাহ, ভুবনেশ্বর কুমার এবং মোহাম্মদ শামি।

বাকি চারটি জায়গার জন্য বাছাই করা হবে ৬জনের মধ্য থেকে। তারা হলেন, ‘আম্বাতি রাইডু। লোকেশ রাহুল, দিনেশ কার্তিক, রিশাভ পান্ত, বিজয় শঙ্কর এবং রবীন্দ্র জাদেজা।’ এই ৬ জনের মধ্যে থেকে কোন চারজনের কপাল খোলে সেটাই এখন দেখার বিষয়।

আপনার মতামত জানানঃ