ছাত্রদলের মনোনয়ন বিতরণ আজ, সংঘর্ষের আশঙ্কা

প্রকাশিতঃ ৪:২২ অপরাহ্ণ, বৃহঃ, ২৭ জুন ১৯

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকঃ কাউন্সিলের তফসিল বাতিল, বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার ও বয়সসীমা উঠিয়ে দিয়ে স্বল্পমেয়াদি ধারাবাহিক কমিটির দাবিতে আজ (বৃহস্পতিবার) থেকে আবারও অবস্থান কর্মসূচি শুরু করবে ছাত্রদলের বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা। এ লক্ষ্যে সকাল ১০টায় রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে যাবেন তারা।

তবে এদিন ছাত্রদলের মনোনয়নপত্র বিতরণ কার্যক্রম প্রতিহত করা হবে আন্দোলনকারীদের প্রধান লক্ষ্য। আর ছাত্রদলের কাউন্সিল সফলে ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী সব কার্যক্রম সম্পন্ন করতে বিএনপিও দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। ফলে নয়াপল্টনে ব্যাপক সংঘর্ষের আশঙ্কা রয়েছে। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, ২৭ ও ২৮ জুন ছাত্রদলের প্রার্থীদের মাঝে মনোনয়নপত্র বিতরণ করা হবে।

ছাত্রদলের বিলুপ্ত কমিটির সহ-সভাপতি ও সংগঠন থেকে বহিষ্কৃত ইকতিয়ার রহমান কবির বুধবার রাতে বলেন, সিনিয়র নেতাদের আশ্বাসের প্রেক্ষিতে এবং তাদের সম্মানার্থে আমরা একদিনের জন্য আন্দোলন কর্মসূচি স্থগিত করেছিলাম। কিন্তু আমাদের দাবি পূরণে এখন পর্যন্ত কোনো অগ্রগতি নেই। তাই আমরা বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় আবারও দলীয় কার্যালয়ে যাব।

তিনি আরও বলেন, ঘোষিত তফসিল বাতিল করে আমাদের দাবি মেনে পুনঃতফসিল ঘোষণা করতে হবে। সে কারণে মনোনয়নপত্র বিতরণ কার্যক্রমও বাতিল করতে হবে। অন্যথায় যেকোনো মূল্যে তা প্রতিহত করা হবে। ফলে অনাকাঙ্ক্ষিত কোনো ঘটনা ঘটলে তার জন্য সিন্ডিকেট দায়ী থাকবে।

দাবি আদায়ে গত মঙ্গলবার নয়াপল্টনে এক ঘণ্টার অবস্থান কর্মসূচি পালন করে বিক্ষুব্ধরা। তবে কর্মসূচির শুরুতেই বিএনপি কার্যালয়ে ছাত্রদলের দুই পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে ৪/৫ জন আহত হয়। পরে দাবি মানতে বিএনপিকে একদিনের সময় দিয়ে কর্মসূচি স্থগিত করে বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা।

নতুন নেতৃত্ব নির্বাচনের লক্ষ্যে গত ২৩ জুন ছাত্রদলের কাউন্সিল-২০১৯ এর তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন পরিচালনা কমিটি। তফসিল অনুযায়ী গত সোমবার খসড়া ভোটার তালিকা, প্রার্থী হওয়ার যোগ্যতা ও আচরণবিধি প্রকাশ করা হয়। বুধবার চূড়ান্ত ভোটার তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। প্রার্থীদের মাঝে মনোনয়নপত্র বিতরণ ২৭ ও ২৮ জুন, মনোনয়নপত্র জমা ২৯ ও ৩০ জুন, প্রার্থী বাছাই ১, ২ ও ৩ জুলাই হবে।

আগামী ৪ জুলাই প্রার্থীদের খসড়া তালিকা প্রকাশ, তালিকার ওপর আপত্তি ও নিষ্পত্তি যথাক্রমে ৫ ও ৬ জুলাই এবং চূড়ান্ত তালিকা ৭ জুলাই প্রকাশ করা হবে। আগামী ১৫ জুলাই ভোটের মাধ্যমে ছাত্রদলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচন করা হবে। তবে ভোটের স্থান এখনও নির্ধারিত হয়নি। গত ৩ জুন ছাত্রদলের মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটি ভেঙে দেয় বিএনপি।

আপনার মতামত জানানঃ