বাউফলে নেশা করতে না পেরে মা-বাবা সহ ৫ জনকে কুপিয়ে জখম!

কহিনুর বাউফল (পটুয়াখালী)সংবাদ দাতা ঃ পটুয়াখালী জেলার বাউফলে নেশার টাকা না দেয়ায় দফায় দফায় হামলা চালিয়ে পাঁচজনকে কুপিয়ে আহত করেছে নেশা খোর পুত্র বাবুল হাওলাদার। মুমূর্ষু অবস্থায় রফিক হাওলাদার ও বেল্লাল হাওলাদার কে বরিশাল শের-ই- বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। অন্যান্যদের বাউফল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহতরা হচ্ছে, বাবা আলম হাওলাদার (৫৫) মা মাকসুদা বেগম (৪৫) বোন শান্তা (১০) রফিক হাওলাদার (৩৫) বেল্লাল হাওলাদার (৪৩)।১৪ জুন শুক্রবার বেলা ১১টায় উপজেলার কেশবপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

জানাগেছে, উপজেলার কেশবপুর ইউনিয়নের আলম হাওলাদারের পুত্র বাবুল নেশার টাকা না দিলে প্রায়ই বাবা মাকে মারধর এবং ঘরের আসবাবপত্র ভাংচুর করত। গতকাল শুক্রবার সকাল সাড়ে এগারোটার দিকে বাবুল তার বাবা আলম হাওলাদারের কাছে নেশার জন্যে পাঁচশত টাকা চায়। তার বাবা এতে অস্বীকৃতি জানালে নেশাখোর বাবুল বাবা আলমকে বেধরক কিলঘুষি ও লাথি মারতে থাকে । তাকে রক্ষা করতে মা দৌড়ে আসলে তাকেও রামদা দিয়ে দিয়ে পিটিয়ে ও কুপিয়ে আহত করে। এসময় ছোট বোন শান্তা আসলে তাকেও পিটিয়ে আহত করে। এ ঘটনায় বাড়ির চাচাতো ভাই রফিক ও বেল্লাল তাকে ধরে থামিয়ে দেয়ার চেষ্টা করে এবং চর থাপ্পর মারে।

এতে সে ক্ষিপ্ত হয়ে দুপুরের পরে সঙ্গীয় শুভ, সৈকত ও জুয়েলের নের্তৃত্বে ধারালো অস্ত্র নিয়ে বাড়িতে ঢুকে রফিক হাওলাদার (৩৫) এবং বেল্লাল হাওলাদার (৩৮) কে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে। পরে স্থানীয় লোকজন রফিক হাওলাদার বেল্লাল আলম, মাকসুদা বেগম ও শান্তাকে উপজেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। রফিক হাওলাদার ও বেল্লালের অবস্থা আশংঙ্কাজনক হওয়ায় তাদের বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। অন্যদের বাউফল স্বাস্থ্য কেন্দ্রে চিকিৎসা চলছে। এবিষয়ে বাউফল মডেল থানার ওসি খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে ।

আপনার মতামত জানানঃ