বাউফল হাসপাতালে ডা: রউফের হাতে যৌন হয়রানির শিকার এক গৃহবধূ

কহিনুর বাউফল (পটুয়াখালী) সংবাদ দাতা ঃ পটুয়াখালী জেলার বাউফল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স মেডিকেল অফিসার ডাক্তার আবদুর রউফের হাতে এক গৃহবধূ যৌণ হয়রানির শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বিষয়য়টি নিয়ে উপজেলায় মহলে তিরিস্কারে ঝড় উঠেছে। মঙ্গলবার রাতে উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স্রে অসুস্থ সন্তানের চিকিৎসা করাতে এসে যৌণ হংরানির শিকার হন কালাইয়া ইউনিয়নের আয়নাবাজ কালাইয়া গ্রামের এ গৃহবধু।
একাধিক সূত্রে জানাগেছে, মঙ্গলবার বেলা সোয়া ১১ টার দিকে ওই গৃহবধু তার ১১ মাসের সন্তানকে নিয়ে বাউফল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আসেন এবং ডাক্তার আবদুর রউফ অধীনে ভর্তি করেন।

সন্ধার দিকে ডাক্তা আবদুর রউফ ওই গৃহবধূকে মোবাইল ফোনে কল করে হাসপাতাল কোয়ার্টারে তার চেম্মারে দেখা করতে বলেন। রাত ৮ টার দিকে গৃহবধূ তার খালাকে সাথে নিয়ে ডাক্তারের চেম্বারে যান। ওই গৃহবধূর সাথে তার খালাকে দেখে ডাক্তার রাগাম্বিত হয়ে উঠেন এবং তাকে পুনরায় হাসপাতাল গিয়ে ভর্তির কাগজপত্র নিয়ে একা আসতে বলেন। প্রায় ১০ মিনিট পর ওই গৃহবধূ ডাক্তারের চেম্বারের যান। এ সময় ওই চেম্বারে তিনি ছাড়া অন্য কেউ ছিলেণ না।

এই সুযোগে ডাক্তার আবদুর রউফ তাকে কু-প্রস্তাব দেন। তিনি রাজি না হাওয়া ডা: রউফ তাকে ঝাপটে ধরেন। এবং শরীরে স্পর্শকাতর স্থানে হাত দেন। ওই সময় গৃহবধূ ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে চেম্বারে থেকে বাইরে এসে তার এক মামাকে মোবাইল করলে তিনি দ্রæত ঘটনা স্থলে চলে আসেন। এবং ডাক্তার রউফের চেম্বারে ঢুকে তাকে কিল ঘুষি মারেন। ঘটনাটি হাসপাতাল চত্বরে ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয় সাংবাদিকসহ ২০-২৫ জন লোক ঘটনা স্থান জড়ো হয়। ওই গৃহবধূর পরিবারের পক্ষ থেকে বিষয়টি স্বাস্থ্য পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তাকে অবহিত করেন। এ ঘটনার পর বুধবার হাসপতালে থেকে ওই গৃহ বধূর সন্তানকে পটুয়াখালী রেফার করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে ডা: রউফ বলেন, ঘটনাটি সত্য নয়। আমার ভাবমূর্তি বিনষ্ট করার জন্য একটি মহল এ অপচয় প্রচার চালিয়েছে। বাউফল হাসপাতালে স্বাস্থ্য পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: প্রশান্ত সাহা পিকে সাহা) বলেন, ঘটনাটি আমাকে মৌখিক ভাবে জানানো হয়েছে। কোন লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়নি। তবে ডাক্তারের সাথে আলোচনা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

আপনার মতামত জানানঃ