শিক্ষক সমস্যা, ছাত্রদের চুল নিয়ে

লাইফস্টাইল: কারও চুল সলমন খানের মতো, কারোর আবার শাহরুখের মতো। আবার কোনও এক হলিউড স্টারের মতো নিজের চুল ছেঁটে ঘুরছে কোনও এক ছাত্র।
এই বিষয়ে অন্যান্য খবর

স্কুল পড়ুয়াদের এমন বিভিন্ন ধরনের চুলের বাহারের ফলে স্কুলে পড়াশোনার পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে। বাধ্য হয়ে তাই সেলুনকর্মীদের দ্বারস্থ হলেন দক্ষিণ ২৪ পরগনার ভাঙড়ের হাটগাছা হরিদাস বিদ্যাপীঠের প্রধান শিক্ষক।

স্কুলের আশেপাশের প্রতিটি সেলুনে নোটিশ ঝুলিয়ে দেওয়া হয় স্কুলের পক্ষ থেকে। যাতে লেখা— দৃষ্টিকটু লাগে এমন চুলের ছাঁট ছাত্রদের যাতে না কেটে দেন সেলুনের লোকজন। নোটিশের নীচে নাম রয়েছে স্বয়ং প্রধান শিক্ষক পার্থসারথী দাসের। প্রসঙ্গত, এই উদ্যোগে প্রধান শিক্ষকের পাশে দাঁড়িয়েছেন অভিভাবকরা।

প্রধান শিক্ষকের কথানুযায়ী, আগে একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণির কিছু ছাত্র ফিল্মি স্টাইলে তাদের চুল ছাঁটত। কিন্তু সেই ট্রেন্ড ক্রমেই ছড়িয়ে পড়ে স্কুলের পঞ্চম শ্রেণি থেকে অন্যান্য ক্লাসের ছাত্রদের মধ্যেও।

এতে যে স্কুলের শৃঙ্খলা ও পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে, তা বলাই বাহুল্য। স্কুলের তরফ থেকে ছাত্রদের এমনটা না করতে বলা হলেও কোনও লাভ হয়নি। তখনই প্রধান শিক্ষক এমন পদক্ষেপ নেন।

ছাত্রদের অভিভাবকরা পার্থসারথী দাসকে সমর্থন করলেও, অখুশি সেলুনকর্মীরা। কারণ, তাঁদের রোজগারে ভাটা পড়বে বলেই মনে করছেন তাঁরা। এ বিষয়ে স্কুলের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়ার দাবিও জানিয়েছেন সেলুন কর্মীরা। কিন্তু অভিভাবকরা মনে করছেন, প্রধান শিক্ষক সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

আপনার মতামত জানানঃ