শ্বশুরের গুলিতে জামাইয়ের মৃত্যু

প্রকাশিতঃ ১:২৯ অপরাহ্ণ, শনি, ৫ অক্টোবর ১৯

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ শ্বশুরকে জন্মদিনে শুভেচ্ছা জানিয়ে চমকে দিতে চেয়েছিলেন মেয়ের জামাই। এজন্য সুদূর বিদেশ থেকে এসে শ্বশুরবাড়ির পেছনে ঝোপের মধ্যে লুকিয়ে ছিলেন। পরিকল্পনা মাফিক দরজায় ধাক্কা দিয়ে দৌড়ে ফের চলে যান ওই ঝোপের মধ্যে। শ্বশুর দরজা খুলতেই চিৎকার করে ওঠেন জামাই। কিন্তু, কপাল মন্দ! শ্বশুর এতটাই চমকে গিয়েছিলেন যে, সরাসরি গুলিই করে বসেন তাকে। আর রক্ষা হয়নি। চমক দেখাতে গিয়ে উল্টো প্রাণটাই হারাতে হলো তাকে।
শুক্রবার (৪ অক্টোবর) আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানায়, গত মঙ্গলবার (১ অক্টোবর) রাতে ৬১ বছর বয়সী রিচার্ড ডেনিস এর জন্মদিন উপলক্ষে তাকে ‘সারপ্রাইজ’ দিতে সুদূর নরওয়ে থেকে ফ্লোরিডার গালফ ব্রিজে আসেন তার মেয়ের জামাই ক্রিস্টোফার বার্গান। ঝোপের আড়াল থেকে হঠাৎ বেরিয়ে চিৎকার করলে তার বুকে গুলি করেন রিচার্ড।
পুলিশ জানায়, ঘটনার দিন সন্ধ্যায় এক আত্মীয়ের সঙ্গে বাকবিতণ্ডা হয়েছিল রিচার্ড ডেনিসের।
সেই আত্মীয় যেভাবে দরজায় আঘাত করেন, ঠিক একইভাবে দরজায় আঘাত করেছিলেন ৩৭ বছর বয়সী বার্গান।
শ্বশুরের ৬২তম জন্মদিনে চমকে দিতে নিজের দেশ নরওয়ে থেকে চলে আসেন বার্গান। স্ত্রীর সঙ্গে সেখানেই বসবাস করতেন তিনি।
পুলিশ জানায়, বিমানবন্দর থেকে সরাসরি রিচার্ডের বাসায় যান বার্গান। এরপর বাড়ির পেছনের দরজায় সজোরে আঘাত করেন। কী হয়েছে দেখতে বারান্দার আলো জ্বালান শ্বশুর রিচার্ড। ঠিক তখনই ঝোপের ভেতর থেকে লাফ দিয়ে চিৎকার করে ওঠেন বার্গান।
ভুলবশত গুলি করে হত্যা করায় অবশ্য বড় শাস্তির মুখে পড়তে হচ্ছে না রিচার্ড ডেনিসকে।
সান্তা রোজার পুলিশ প্রধান বব জনসন সংবাদমাধ্যমকে বলেন, রিচার্ড যা করেছেন তার কারণ নিয়ে দ্বিতীয়বার ভাবতে চাই না। তদন্ত করে আমরা বুঝতে পেরেছি, যা ঘটেছে পুরোটাই ছিল দুর্ঘটনা। নির্মম এই দুর্ঘটনায় তার বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে লাভ নেই। যা করেছেন তার জন্যে রিচার্ডকে দোষারোপ করা যায় না।

আপনার মতামত জানানঃ