আর্চারের বাউন্সারে রক্তাক্ত ক্যারে

প্রকাশিতঃ ৬:৫২ অপরাহ্ণ, বৃহঃ, ১১ জুলাই ১৯

স্পোর্টস ডেস্কঃ লর্ডসের ঐতিহাসিক ফাইনালে নিউজিল্যান্ডের মুখোমুখি হতে আজ (বৃহস্পতিবার) এজবাস্টনে পরস্পর লড়াই করছে ইংল্যান্ড এবং অস্ট্রেলিয়া। প্রথম সেমিফাইনালের মতো এই ম্যাচেও জমজমাট এক লড়াই দেখছে ক্রিকেট ভক্তরা। দুই দলের দ্বৈরথে টস জিতে আগে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন অসি অধিনায়ক অ্যারোন ফিঞ্চ। ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই উইকেট হারাতে থাকে তারা। জোফরা আর্চার ও ক্রিস ওকসের তোপে মাত্র ১৪ রানেই ৩ উইকেট হারায় পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। ফলে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়তে হয় তাদের। কঠিন এই বিপদ থেকে দলকে রক্ষা করতে ক্রিজে রয়েছে দুই ব্যাটসম্যান অ্যালেক্স ক্যারে এবং স্টিভেন স্মিথ। তবে কোনমতেই আর্চার এবং ওকসের আক্রমণাত্মক বোলিং থেকে নিজেদের বাঁচাতে পারছেন না তারা।

ইনিংসের অষ্টম ওভারের শেষ বলে দুর্দান্ত এক বাউন্সারে ক্যারের হেলমেট উড়িয়ে দেন আর্চার। দুর্দান্ত সেই বলটি ক্যারের থুতনিতে লাগলে তৎক্ষনাৎ সেখান থেকে গড়গড়িয়ে রক্ত পড়তে শুরু করে। এরপর সঙ্গে ড্রেসিংরুমে থাকা ফিজিওকে মাঠে নামার জন্য ইশারা দেন তিনি। ফিজিও আসার মাঝেও প্রচুর রক্তক্ষরণ হতে থাকে তার থুতনি থেকে। ফিজিও এসে থুতনিতে ব্যান্ডেজ বেধে দিলে, রক্ত পড়া বন্ধ হয়। রক্তাক্ত হলেও দমে যাননি ক্যারে। ব্যান্ডেজ নিয়েই ব্যাট হাতে লড়াই করে যাচ্ছেন এই অসি ব্যাটসম্যান। এবং সামলে যাচ্ছেন ইংলিশ পেসারদের একের পর এক বাউন্সার।

ক্যারের এই অবস্থা মনে করিয়ে দিয়েছে ২০০৫ সালে ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত অ্যাশেজ সিরিজকে। ওই সিরিজে ইংলিশ পেসার স্টিভ হার্মিসনের এক বাউন্সারে গাল ফেটে রক্ত বের হয়ে গিয়েছিল অসি ব্যাটসম্যান রিকি পন্টিংয়ের। তারপর ব্যান্ডেজ নিয়ে খেললেও সেই ম্যাচে খুব বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি এই কিংবদন্তি। আউট হয়ে ফিরতে তাকে।

আপনার মতামত জানানঃ