আশুলিয়ায় যুবলীগ নেতাসহ ১৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা

আশুলিয়ায় যুবলীগ নেতাসহ ১৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা

আশুলিয়া প্রতিনিধি; (ঢাকা): সাভারের আশুলিয়ার নরসিংহপুরে ঝুট ব্যবসায় আধিপত্য নিয়ে মারামারির ঘটনায় থানা যুবলীগের আহ্বায়কসহ ১৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।
বুধবার (৭ আগস্ট) দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আশুলিয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জাবেদ মাসুদ।
এর আগে, মঙ্গলবার (৬ আগস্ট) বিকেলে আশুলিয়ার নরসিংহপুরে বুড়িপাড়া এলাকায় নিট এশিয়া গার্মেন্টসের সামনে মারামারির ঘটনায় গুরুতর আহত অবস্থা হাসপাতালে পাঠানো হয় যুবলীগের সাবেক নেতা বজলুর রহমানসহ পাঁচ জনকে। পরে বুধবার ভোরে বজলুর রহমানের স্ত্রী রাজিয়া বেগম বাদী হয়ে আশুলিয়া থানায় এ মামলা দায়ের করেন।
মামলার আসামিরা হলেন- গাজীপুরের কাশিমপুর থানার এলাকার বাসিন্দা ও আশুলিয়া থানা যুবলীগের আহ্বায়ক কবির হোসেন সরকার (৪০), একই গ্রামের মজিবর মোল্লার ছেলে সোহেল মোল্লা (৩২), মৃত কাদের মিয়ার ছেলে তোফায়েল আহম্মেদ তাপস মিয়া (২৮), মিজান মিয়ার ছেলে সালা উদ্দিন মিয়া (৩০), বাছেদ বেপারীর ছেলে হোসেন বেপারী (২৮), হাবিব দেওয়ান মেম্বরের ছেলে কামরুল দেওয়ান (৩০), আবুল বেপারীর ছেলে হালিম বেপারী (৩০)। এছাড়া ইয়ারপুরের মৃত ফজল ভূঁইয়ার ছেলে রুবেল হোসেন (২৯), বুড়িরপাড়া এলাকার শামছুল সরকারের ছেলে শামীম সরকার (২৮), আশুলিয়ার গুমাইলের খালেল মণ্ডলের ছেলে নাজমুল মন্ডল (২৭), ঘোষবাগের হানিফের ছেলে নাজিম (৩২), ইয়ারপুরের আফাজ উদ্দিনের ছেলে শফিকুল ইসলাম (২০) ও তৈয়বপুরের আবু বকরসহ (২৮) অজ্ঞাতনামা আরও ৫ থেকে ৬ জন।
মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, আশুলিয়ার নরসিংহপুরে বুড়িপাড়া এলাকায় নিট এশিয়া গার্মেন্টসে দীর্ঘদিন ধরে ঝুট ব্যবসা করে আসছিলো বজলুর রহমান নামে সাবেক আওয়ামী লীগ নেতা। ঘটনার দিন বিকেলে বজলুর রহমান ওই গার্মেন্টসে ট্রাক নিয়ে ঝুট বের করতে যান। এসময় ধারালো অস্ত্র, লাঠি-সোটা নিয়ে ঝুট বের করতে বাধা দেন থানা যুবলীগের আহ্বায়কসহ তার লোকজন। তাদের কাছে দাবি করা চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে তারা লোহার রড, লাঠি, দামদা, চাপাতি ইত্যাদি দেশীয় অস্ত্র নিয়ে তাদের উপর হামলা করে। এসময় ঝুট ব্যবসায়ী বজলুর বেপারী ও তার ভাই মজনু বেপারীসহ তাদের কয়েকজন মারধরে আহত হয়। এদের মধ্যে সন্ত্রাসীরা ঝুট ব্যবসায়ী বজলুর রহমানের দুই পা ও এক হাত এবং তার ভাই মজনু ব্যাপারির এক হাত ভেঙে দেন। পরে স্থানীয়রা আহতদের দ্রুত উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য সাভারের এনাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে।
আহত ব্যবসায়ী ও আশুলিয়া থানা যুবলীগের সাবেক নেতা বজলু বেপারী ও তার ভাই মজনুসহ পাঁচজন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।
এবিষয়ে আশুলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি-তদন্ত) জাবেদ মাসুদ বাংলানিউকে বলেন, অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত করে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়। এ ঘটনায় দু’জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।
চলতি বছরের ২২ মে ঝুট ব্যবসা নিয়ে বিরোধের জেরে আশুলিয়ায় যুবলীগ আহ্বায়ক কবির হোসেন সরকার সহ সাতজনের নামে গাজীপুরের কাশিমপুর থানায় মামলা দায়ের করা হয়। এছাড়া গত বছরের ২২ ডিসেম্বর আশুলিয়ায় আওয়ামী লীগ প্রার্থীর নির্বাচনী প্রচারণা সময় দু’পক্ষের মারধরে ঘটনায় যুবলীগের আহ্বায়ক কবির হোসেন সরকারসহ ১৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছিলো।

আপনার মতামত জানানঃ