কুড়িগ্রামে  সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রীকে ধর্ষনের দায়ে থানায় মামলা ধর্ষক আটক

প্রকাশিতঃ ৬:১৯ অপরাহ্ণ, বৃহঃ, ৭ নভেম্বর ১৯

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি : কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে সপ্তম শ্রেণীর এক স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষনের দায়ে ফুলবাড়ী থানায় মামলা দায়ের হয়েছে মেয়ের বাবা রবিন্দ্রনাথ বর্মন। ধর্ষিতা স্কুল ছাত্রী হলেন উপজেলার ভাঙ্গামোড় ইউনিয়নের রাবাইতারী এস.বি বহু মুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রী।
থানায় অভিযোগ সুত্রে জানাগেছে, গত বুধবার লম্পট ধর্ষক ভোলা নাথ বর্মন (৪০) ধর্ষিতার বাবা রবিন্দ্র নাথ বর্মনের অসুস্থ্যতার সুযোগে সপ্তম শ্রেণীর স্কুল পড়ুয়া ওই ছাত্রীকে টাকার প্রলোভন দেখিয়ে তাদের বাড়ীর খাবারে চেতনানাশক ঔষধ মিশিয়ে দিতে বলেন। পরে ধর্ষক এটাও বলেন ঔষধ খেলে তার বাবার চোখের অসুখ ভালো হয়ে যাবে। মেয়েটি টাকার লোভে ও বাবার সুস্থ্যতার জন্য সরল বিশ্বাসে রাতে তাদের খাবারের সাথে ঔষধ মিশিয়ে দেন। সেই খাবার খেয়ে স্ব-পরিবারে অচেতন হয়ে পরেন সকল সদস্য। সেই সুযোগে ধর্ষক শ্রী ভোলানাথ বর্মন রাত আনুমানিক সাড়ে ১২টায় ওই স্কুল ছাত্রীর শোয়ার ঘরে ঢুকে জোর পুর্বক তাকে ধর্ষন করে। এরপর ওই রাতেই আনুমানিক রাত ৩ টায় আবারো ধর্ষিতার শোয়া ঘরে ঢুকে তার সঙ্গে থাকা নিজের ভাগ্নীকে ২য় বার ধর্ষন করেন।
সকালে উঠে মেয়েটি ও তার ভাগ্নি পরিবারের সদস্যদের বিষয়টি জানালে পিতা রবিন্দ্র নাথ বর্মন গত বুধবার রাতে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। পরে ফুলবাড়ী থানার এস আই হাবিবুর রহমান হাবিব ওই ধর্ষককে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। লম্পট ধর্ষক ভোলানাথ বর্মন উপজেলার রাবাইতারী গ্রামের শ্রী অমুল্য চন্দ্রের ছেলে।
ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ খন্দকার ফুয়াদ রুহানী জানান, মেয়ের বাবা শ্রী রবিন্দ্র বর্মন বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেছেন। মামলার ভিত্তিতে ধর্ষককে গ্রেফতার করা হয়েছে এবং ধর্ষিতার ডাক্তারী পরীক্ষা ও ২২ ধারায় জবান বন্দী রেকর্ডের জন্য জেলা সদরে পাঠানো হয়েছে।  (মামলা নং-৫)।

আপনার মতামত জানানঃ