টঙ্গীতে জুট ব্যবসাকে কেন্দ্র করে হামলা; মুক্তিযোদ্ধাসহ আহত ৪ 

প্রকাশিতঃ ১০:১০ অপরাহ্ণ, সোম, ৯ মার্চ ২০

অমল ঘোষ, টঙ্গী (গাজীপুর) প্রতিনিধি :টঙ্গী দাড়াইল পশ্চিম পাড়া এলাকায় আধিপত্য বিস্তার ও গার্মেন্টের জুট ব্যবসাকে কেন্দ্র করে সন্ত্রাসীদের হামলায় মুক্তিযোদ্ধাসহ ৪ জন আহত হয়েছে। এ ঘটনায় টঙ্গী পশ্চিম থানায় মামলা হয়েছে। পরে সন্ত্রাস বাহিনী প্রধানকে গ্রেফতার করে গতকাল সোমবার জেল হাজতে প্রেরণ করেছে পুলিশ। হামলার ঘটনায় এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোন সময় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হতে পারে।
জানা যায়, সন্ত্রাসী খোকনের নেতৃত্বে একটি দল দীর্ঘ দিন যাবৎ ওই এলাকায় জুট ব্যবসা নিয়ন্ত্রন ও বিভিন্ন প্রকার অপরাধমূলক কাজ করে আসছে। স্থানীয় এক আওয়ামীলীগ নেতার নির্দেশে মুক্তিযোদ্ধা আ: মজিদ সরকারসহ ৫ জন বর্জিত মালামালের জন্য সন্ত্রাসী খোকন নিয়ন্ত্রিত এসপি বাংলা গার্মেন্টে যায়। কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা শেষে গার্মেন্ট থেকে গত রোববার রাত ৮ টার দিকে তারা বাড়ি ফিরছিলেন।  এসময় পুর্ব থেকে ওৎ পেতে থাকা সন্ত্রাসী খোকনের নেতৃত্বে আরিফ হোসেন (২৫), নাজমুল হোসেন (৩৮), আফজাল হোসেন (৩৬), খোকন মিয়া ওরফে মোল্লা খোকন (৪৫), আবু তালেবসহ (২৭) একদল সন্ত্রাসী তাদের গতিরোধ করে। পরে তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায় খোকন ও তার সন্ত্রাস বাহিনীর সদস্যরা দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র, লোহার রড, দা, লাঠি, ও বাঁশ নিয়ে মুক্তিযোদ্ধা ও তার সাথে থাকা লোকজনের উপর হামলা চালায়। সন্ত্রাসীদের হামলায় মুক্তিযোদ্ধা আ: মজিদ সরকার (৬৬), মাহমুদ আলী (৫৫), ছিপাই আলী (৫৫) ও শাহ আলম (৪২) গুরুতর আহত হয়। আহত সকলে স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছে। এ ঘটনায় মুক্তিযোদ্ধা আ: মজিদ সরকার বাদী হয়ে  ৯ জনকে এজাহার নামীয় আসামী করে টঙ্গী পশ্চিম থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। পুলিশ এজাহারভুক্ত আসামী খোকনকে গ্রেফতার করে গতকাল সোমবার গাজীপুর জেল হাজতে প্রেরণ করেছে পুলিশ।
এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা টঙ্গী পশ্চিম থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক নজমুল হুদা জানান, মারামারির ঘটনার মামলায় একজনকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। অন্যান্য আসামীদের ধরতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

আপনার মতামত জানানঃ