ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  লাইফস্টাইল   »   ত্বকের ধরণ অনুযায়ী ঘরোয়া সিরাম

ত্বক নিয়ে আমরা সব সময়ই সচেতন থাকি

ত্বকের ধরণ অনুযায়ী ঘরোয়া সিরাম

মে ১৯, ২০২০ - ১:৫৯ অপরাহ্ণ

লাইফস্টাইল ডেস্কঃ ত্বক নিয়ে আমরা সব সময়ই সচেতন থাকি। বিশেষ করে প্রসাধনী ব্যবহারের সময় সবাই চাই নকল এড়িয়ে আসল কসমেটিক বেছে নিতে। করোনার এই সময়ে সব শপিং মল প্রায় বন্ধ রয়েছে। আর যদিও কিছু দোকান খোলা রয়েছে তবে অনেকেই ঘরের বাইরে গিয়ে শপিং করছেন না।

অনলাইন থেকেও অনেকে কসমেটিকস কিনতে আস্থা পান না। এই অবস্থায় নিজেই তৈরি করে নিতে পারেন প্রয়োজনীয় প্রসাধনী পণ্য। ত্বক দীর্ঘদিন বলিরেখামুক্ত রাখতে ও ক্লান্তি কাটিয়ে উজ্জ্বলতা বাড়ানোর জন্য ঘরোয়া সিরাম বানিয়ে নিতে পারেন। জেনে নিন ত্বকের ধরণ অনুযায়ী কীভাবে তৈরি করবেন ঘরোয়া সিরাম:

স্বাভাবিক ত্বকের জন্য আধকাপ কফির গুঁড়া একটা কাচের জারে ঢেলে তাতে এক কাপ আমন্ড অয়েল মিশিয়ে দিন। এমনভাবে তেল ঢালুন যাতে পুরো কফিটা তেলে চাপা পড়ে যায়। এবার জারের মুখ বন্ধ করে চার-পাঁচদিন ঠাণ্ডা শুকনো জায়গায় রেখে দিন।

পাঁচদিন পর জারের মুখ খুলে পরিষ্কার গজ কাপড়ের সাহায্যে মিশ্রণটা পাত্রে ছেঁকে নিন। এই তেলে এক টেবিল চামচ অ্যাভোকাডো অয়েল যোগ করুন, তারপর ভালো করে নেড়ে কফির নির্যাসযুক্ত আমন্ড অয়েলের সঙ্গে মিশিয়ে নিন।

শুষ্ক ত্বকে চন্দন ও ল্যাভেন্ডার অ্যাসেনশিয়াল অয়েল মিশিয়ে সিরাম তৈরি করে ব্যবহার করুন।

আর তৈলাক্ত ত্বকের জন্য আধা চা চামচ টি ট্রি অয়েল ও পিপারমিন্ট অয়েল নিন।

তৈরি সিরাম বোতলে ভরে রাখুন। প্রতি রাতে শুতে যাওয়ার আগে প্রথমে মুখ পরিষ্কার করে টোনার লাগিয়ে নিন। এরপর দু’এক ফোঁটা সিরাম নিয়ে আঙুল দিয়ে হালকা করে মিশিয়ে নিন।

নিয়মিত সিরাম ব্যবহার করলে-
• ব্যবহারের পরই দ্রুত ত্বকে কাজ করতে শুরু করে

• ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ে

• ত্বকের গভীরে গিয়ে আর্দ্রতা বজায় থাকে

• তারুণ্য ধরে রাখে, বয়সের ছাপ পড়তে দেয় না

• সব ধরনের দাগ দূর করে।

আপনার মতামত জানানঃ