দূষণ: রাজ্যগুলোকে বিবাদে না জড়ানোর নির্দেশ আদালতের

প্রকাশিতঃ ৪:৫২ অপরাহ্ণ, সোম, ৪ নভেম্বর ১৯

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ ভারতের দিল্লিতে বায়ুদূষণ স্বাস্থ্যঝুঁকির সর্বোচ্চ সীমা টপকে গেছে। নানা পদক্ষেপ নেওয়ার পরেও অবস্থা অপরিবর্তিত। এ বিষয়ে একে অপরকে দুষছে রাজ্য সরকারগুলো।

সোমবার (৪ নভেম্বর) দূষণ নিয়ে রাজ্য সরকারগুলোকে একে অপরকে দোষারোপ করা থেকে বিরত থাকার নির্দেশ দিয়েছেন দেশটির সুপ্রিম কোর্ট।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি জানায়, পরিবেশ বসবাসের উপযোগী করার পদক্ষেপ হিসেবে সোমবার (৪ নভেম্বর) স্থানীয় সময় সকাল ৮টা থেকে ব্যক্তিগত গাড়ি ব্যবহার সীমিতকরণের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ৪ থেকে ১৫ নভেম্বর পর্যন্ত জোড়-বিজোড় নম্বর প্লেটের গাড়ি আলাদা দিনে রাস্তায় নামানো হবে।

কেউ আইন অমান্য করলে জরিমানারও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ২০১৬ সালেও দিল্লিতে ‘অড-ইভেন প্ল্যান’ নামে এই ব্যবস্থা চালু করা হয়েছিল। এই আইনের বাইরে রাখা হয় পাবলিক পরিবহন, দুই চাকার যেকোনো বাহন ও যেসব নারী নিজে গাড়ি চালান তাদের।

তবে এই ব্যবস্থাতেও দিল্লির দূষণ নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হবে কি-না তা নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহ রয়েছে বলে জানিয়েছে পরিবেশ দূষণ নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ (ইপিসিএ)। তাদের প্রতিবেদনে বলা হয়, দিল্লির দূষণ বাড়িয়ে দেয় গাড়ির কালো ধোঁয়া ও পাশের রাজ্য হরিয়ানা-পাঞ্জাবের জমির জঞ্জাল পোড়ানোর ধোঁয়া। তার মানে এই নয় যে, এগুলো নিয়ন্ত্রণে আনলেই রাতারাতি অবস্থার পরিবর্তন হবে। তবে, দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনায় ধীরে ধীরে দূষণ মোকাবিলা সম্ভব হতে পারে। এ মুহূর্তে শহরটিতে দূষণের কারণ হিসেবে চিহ্নিত কাজগুলো এড়িয়ে চলাই সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন।

এদিকে, দিল্লি ও নয়দায় সোমবারও সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। আগামী ৬ নভেম্বর খোলা হবে কি-না এবিষয়ে এখনো কিছু জানায়নি কর্তৃপক্ষ।

আপনার মতামত জানানঃ