নদ-নদী, খাল ও সরকারি জলাধারের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান শুরু হতে যাচ্ছে

প্রকাশিতঃ ৭:৫৪ অপরাহ্ণ, বৃহঃ, ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০

Advertisements
ঢাকা: আগামী ২৩ ফেব্রুয়ারি থেকে সারাদেশে নদ-নদী, খাল ও সরকারি জলাধারের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান শুরু হতে যাচ্ছে বলে জানিয়েছে পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়। বৃহস্পতিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে ৬৪ জেলা প্রশাসনের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে উচ্ছেদ অভিযানে করণীয় সম্পর্কে আলোচনা সভায় এ তথ্য জানানো হয়। জেলা প্রশাসন ও বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের যৌথ প্রচেষ্টায় গত বছরের ২৩ ডিসেম্বর থেকে শুরু হওয়া উচ্ছেদ অভিযানের প্রথম পর্যায় সম্পন্ন হওয়ার পর এ উদ্যোগ নিয়েছে পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়।
সভায় পানি সম্পদ সচিব কবির বিন আনোয়ার বলেন, প্রায় ৪০ হাজার অবৈধ স্থাপনার তালিকা নিয়ে শুরু হওয়া অভিযানের প্রথম পর্যায়ের পর আমরা ইতোমধ্যে এর সুফল পাচ্ছি। প্রথম পর্যায়ে সারাদেশে আমরা প্রায় সাড়ে পাঁচ হাজারের বেশি স্থাপনা উচ্ছেদ করেছি এবং প্রায় ছয়শ’ একর জমি উদ্ধার করেছি। দ্বিতীয় পর্যায়ে আমরা আরও বেশি সফল হওয়ার আশা করছি। রাজনৈতিক পরিচয় বা অন্য কোনোভাবে অবৈধ দখল উচ্ছেদে ছাড় দেওয়া হবে না। তিনি বলেন, বালু উত্তোলনের ব্যাপারে বালু মহলকে বয়ার দিয়ে চিহ্নিত করতে হবে এবং বালু উত্তোলনে নির্দিষ্ট এলাকা অতিক্রমে জরিমানা করা হবে। এতে ভূমিধস লাঘব হবে। বালু উত্তোলনের জন্য চিহ্নিত এলাকাগুলো নজরদারিতে রাখতে হবে।
তিনি আরও বলেন, পরবর্তীকালে আমরা প্রতিমাসে অন্তত একদিন বিশেষ করে ২৩ তারিখ বা সুবিধাজনক সময়ে উচ্ছেদ অভিযান অব্যাহত রাখবো। নদীভাঙনে ভূমিহীন ও হত দরিদ্রদের জন্য আশ্রয় প্রকল্পের মাধ্যমে বা বিকল্প স্থানে পুনর্বাসনের প্রতি জোর দিচ্ছি। ভিডিও কনফারেন্সে মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব (পরিকল্পনা) মন্টু কুমার বিশ্বাস, পানি উন্নয়ন বোর্ডের মহাপরিচালক কে এম আনোয়ার হোসেন এবং মন্ত্রণালয়ের অন্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। মুজিববর্ষে পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের একাধিক পরিকল্পনাও আলোচিত হয় সভায়।

আপনার মতামত জানানঃ