পলিটেকনিকের আরও ৪ শিক্ষার্থী গ্রেফতার, ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ

প্রকাশিতঃ ২:১৬ অপরাহ্ণ, সোম, ৪ নভেম্বর ১৯

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ রাজশাহী পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষকে পুকুরে ফেলা দেওয়ার ঘটনায় আরও ৪ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
সোমবার (৪ নভেম্বর) দুপুরে রাজশাহী মহানগর পুলিশের মুখপাত্র অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (সদর) গোলাম রুহুল কুদ্দুস এ ব্যাপারে নিশ্চিত করেন। রোববার (৩ নভেম্বর) রাতে বিভিন্ন স্থানে  অভিযান চালিয়ে তাদের চারজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মামলায় থাকা অজ্ঞাতনামা ৫০ আসামির মধ্যে তাদের গ্রেফতার দেখানো হয়েছে।
গ্রেফতাররা হলেন- মহানগরীর আসাম কলোনী এলাকার মেহদী হাসান আশিক (২২), মেহদী হাসান হিরা (২৩), মহানগরীর সাধুর মোড় এলাকার নবীউল উৎস (২০) ও ছোটবনগ্রাম এলাকার নজরুল ইসলাম (২৩)। গ্রেফার সবাই রাজশাহী পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থী ও ছাত্রলীগ কর্মী। এর আগে এ ঘটনায় আরও ৫ জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।
গোলাম রুহুল কুদ্দুস বলেন, মূল আসামিসহ মামলায় নাম উল্লেখ করা ৮ আসামিকেও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। শিগগিরিই তারা ধরা পড়বে।
গত শনিবার (২ নভেম্বর) রাতে ছাত্রলীগের ৮ নেতাকর্মীর নাম উল্লেখসহ ৫০ অজ্ঞাত শিক্ষার্থীর নামে মামলা করেন অধ্যক্ষ ফরিদ উদ্দীন। পরবর্তীতে এদিন রাতেই মহানগরীর বিভিন্ন ছাত্রাবাসে অভিযান চালিয়ে ২৬ জনকে আটক করা হয়। পরে তাদের মধ্যে ৫ জনকে মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায় পুলিশ।
এদিকে অভিযুক্ত সৌরভসহ আট সহযোগীকে গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে সোমবার সকালে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। ক্লাস বর্জন করে পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের সামনে এ বিক্ষোভ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও কর্মকর্তারা। ক্যাম্পাসে কোনো রকম অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে এসময় বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করে পুলিশ।
গত শনিবার দুপুরে ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষকে টেনেহিঁচড়ে পুকুরে ফেলে দেওয়ার ঘটনা ঘটে। এর প্রতিক্রিয়ায় ওই ঘটনার মূল হোতা সৌরভকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করে ছাত্রলীগ। একইসঙ্গে পলিটেকনিক শাখা ছাত্রলীগের সব কার্যক্রম স্থগিত করা হয়। এ ঘটনায় সিসিটিভির ফুটেজ দেখে জড়িতদের শনাক্ত করেছে পুলিশ।

আপনার মতামত জানানঃ