ফুলমিয়ার কলোনীতে চলছে জমঝমাট দেহ বাণিজ্য

প্রকাশিতঃ ১০:১১ অপরাহ্ণ, বৃহঃ, ৭ মার্চ ১৯

মোঃ আসাদুল ইসলাম চট্রগ্রাম প্রতিনিধিঃ  চট্টগ্রাম জেলার বন্দর থানাধীন কলসী দিঘী রোড তালতলা রেলবিটে ফুলমিয়ার কলোনীতে এ দেহ বাণিজ্যের ঘটনা ঘটে। বিবরণে প্রকাশ হবিগঞ্জ জেলার বানিয়াচং উপজেলার বানিয়াচং গ্রামের মাতা নূরজাহান বেগম, পিতা- মোঃ মন্নানের পুত্র মোঃ ফুলমিয়া চট্টগ্রাম জেলার বন্দর থানাধীন কলসী দিঘী রোড পাড়স্থ রেলবিট তালতলা এলাকায় ঘর ভাড়া নিয়ে তার স্ত্রী রহিমা বেগম সহ চালিয়ে যাচ্ছে ঝমঝমাট ও রমরাম দেহ বাণিজ্য জানিয়েছেন এলাকাবাসী ও ভুক্তভোগী রুবী আক্তার। তিনি আরো জানান আমি বিগত ৪ মাস যাবত উক্ত ফুলমিয়ার কলোনীতে বাসা ভাড়া নিয়া বসবাস করিয়া আসিতেছি।

এ সুবাধে উক্ত কলোনীর মালিক ফুলমিয়া ও তার স্ত্রী রহিমা বেগম আমাকে বিভিন্ন সময় দেহ ব্যবসা করার প্রস্তাব দেয়। আমি উক্ত প্রস্তাবে রাজী না হওয়ায় ফুলমিয়া ও রহিমা বেগম মিলিয়া আমাকে এবং আমার স্বামীকে মারধর করেন। এমনকি মার খেয়ে আমার স্বামী বাসা ছেড়ে অন্যত্র চলিয়া গিয়াছেন। এর পর আমি বাসা ছাড়িয়া দেওয়ার কথা প্রকাশ করিলে উক্ত ফুলমিয়া এবং রহিমা বেগম আমাকেও মারধর করে এবং বাসা ছাড়িয়া যাইতে দিবে না বলে বিভিন্ন হুমকি ধমকি দিয়ে যাচ্ছে। এলাকাবাসীরা আরো জানান এই ফুলমিয়া ও রহিমা বেগম আবুল হোসেন আবুইল্যার সহযোগিতায় ইতিপূর্বে উক্ত কলোনীতে অসামাজিক কার্যকলাপ দেহ ব্যবসা পরিচালনা করিলে তৎকালীন ৭১ বাংলা টেলিভিশনে বিষয়টি প্রকাশিত হইলে ফুলমিয়া প্রায় ০১ বছর যাবত সময় পলাতক থাকার পর দ্বিতীয়বারের মতো নিয়মিত এ দেহ বাণিজ্য ব্যবসাটি চালিয়ে যাচ্ছে। এ বিষয় এলাকাবাসী মুখ খুললে তাদেরকে নারী নির্যাতন সহ বিভিন্ন মামলা মোকদ্দমা দিয়া জেলের ভাত খাওয়াবে বলে হুমকি প্রদান করেন। এলাকাবাসী আরো জানান এ দেহ ব্যবসার ঘরটির পার্শ্বে ইপিজেড কর্ণফুলী মডেল স্কুল নামে একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে।

এলাকাবাসী আরো জানান এ দেহ ব্যবসার ঘর চলতে থাকলে যুব সমাজ ধ্বংস হয়ে যাবে। এ বিষয়ে এলাকাবাসী স্থানীয় প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। বিষয়টি ৩৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর জনাব গোলাম মোহাম্মদ চৌধুরীর নিকট জানতে চাইলে তিনি জানান আমার এই ৩৮নং ওয়ার্ডে এধরনের দেহ ব্যবসা বা অসামাজিক কার্যকলাপ চলতে দেওয়া যাবে না। আমি প্রশাসনের সাথে যোগাযোগ করে জরুরী ভিত্তিতে ব্যবস্থা নিবো। এ বিষয়ে বন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ জনাব মহিউদ্দিন মাহমুদ এর নিকট জানতে চাইলে তিনি জানান বিষয়টি আমার জানা নেই। অভিযোগ পেলে জরুরী ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আপনার মতামত জানানঃ