ভাসছে খাতুনগঞ্জ

ভাসছে খাতুনগঞ্জ

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ গত চারদিন ধরে জোয়ারের পানিতে ভাসছে দেশের সবচেয়ে বড় ভোগ্যপণ্যের পাইকারি বাজার খাতুনগঞ্জ। খাতুনগঞ্জের প্রধান সড়কে হাঁটুপানি জমে আছে। পানি ঢুকে পড়েছে নিচু বিপণিকেন্দ্র ও আড়তগুলোতে।
শুক্রবার (২ আগস্ট) দুপুর আড়াইটার পর থেকে জোয়ারের পানি ঢুকতে থাকে খাতুনগঞ্জের বিভিন্ন সড়কে। ধীরে ধীরে তা হাঁটুপানি ছাড়িয়ে যায়। দোকানি ও আড়তদাররা বেচাকেনা ফেলে ব্যস্ত হয়ে পড়েন গদি সামলাতে, পণ্যসামগ্রী পানি থেকে বাঁচাতে।
সরেজমিনে দেখা যায়, খাতুনগঞ্জের পোড়াভিটা, সোনামিয়া মার্কেট, চাক্তাইয়ের চালপট্টি, শুঁটকিপট্টি, মকবুল সওদাগর রোড ও আছদগঞ্জ, হামিদউল্লাহ বাজার ও আশপাশের নিম্নাঞ্চল জোয়ারের পানিতে তলিয়ে গেছে।
ব্যবসায়ীরা জানান, গত কয়েক বছরের অভিজ্ঞতায় তারা নিজ উদ্যোগে দোকান-গুদামের প্রবেশমুখ ও তলা উঁচু করেছেন।
হামিদউল্লাহ খান মার্কেটের ব্যবসায়ী সোলতান মিয়া জাগো নিউজকে বলেন, গত চারদিন ধরে খাতুনগঞ্জের প্রধান সড়কসহ আড়তগুলোতে পানি ঢুকছে। বেশ কিছু নিচু মার্কেটেও পানি ঢুকে গেছে। ব্যবসায়ীরা পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। কখন ভাটা হবে সেই অপেক্ষায় আছি আমরা।
খাতুনগঞ্জ ট্রেড অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ অ্যাসোসিয়েশনের সাংগঠনিক সম্পাদক জামাল হোসেন জাগো নিউজকে বলেন, সরকারি পৃষ্ঠপোষকতা না থাকায় দেশের বৃহত্তম পাইকারি বাজারের ঐতিহ্য হারাচ্ছে চাক্তাই-খাতুনগঞ্জ। জলাবদ্ধতা, যানজটসহ নানা কারণে ক্রেতারা মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছেন। ক্রমবর্ধমান হারে ক্ষতির মুখে পড়ে ব্যবসায়ীরা ব্যবসা গুটিয়ে নিচ্ছেন। এ নিয়ে প্রশাসনের মাধ্যমে সরকারের বিভিন্ন দফতরে ব্যবস্থা নেয়ার অনুরোধ জানালেও সাড়া পাইনি আমরা।
প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালের জুন মাসে বৃষ্টি ও জোয়ারের পানিতে চাক্তাই-খাতুনগঞ্জের ব্যবসায়ীদের প্রায় তিনশ কোটি টাকার ক্ষতি হয়।

আপনার মতামত জানানঃ