ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  অর্থনীতি   »   সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে লেনদেন কমলেও বেড়েছে সিএসইতে

সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে লেনদেন কমলেও বেড়েছে সিএসইতে

মার্চ ১৩, ২০২০ - ৪:১৭ অপরাহ্ণ

জেষ্ঠ্য প্রতিবেদকঃ করোনা ভাইরাস আতঙ্কে বিদায়ী সপ্তাহে (৮-১২ মার্চ) সূচকের পতনেই শেষ হয়েছে পুঁজিবাজারের লেনদেন। সপ্তাহের পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে তিন কার্যদিবস সূচকের পতন হয়েছে। সপ্তাহটিতে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) টাকার পরিমাণে লেনদেন কমলেও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) লেনদেন বেড়েছে।  ডিএসই ও সিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
জানা গেছে, বিদায়ী সপ্তাহে পাঁচ কার্যদিবসে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে দুই হাজার ৮৮ কোটি ৫৪ লাখ ৭৫ হাজার ৯৫৮ টাকার লেনদেন হয়েছে। যা আগের সপ্তাহ থেকে ৩২২ কোটি ২৩ লাখ ৯৯ হাজার ৮৭৫ টাকা বা ১৩ দশমিক ৩৭ শতাংশ কম হয়েছে। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয়েছিল দুই হাজার ৪১০ কোটি ৭৮ লাখ ৭৫ হাজার ৮৩৩ টাকার।
ডিএসইতে বিদায়ী সপ্তাহে গড় লেনদেন হয়েছে ৪১৭ কোটি ৭০ লাখ ৯৫ হাজার ১৯১ টাকার। আগের সপ্তাহে গড় লেনদেন হয়েছিল ৪৮২ কোটি ১৫ লাখ ৭৫ হাজার ১৬৬ টাকার। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইতে গড় লেনদেন ৬৪ কোটি ৪৪ লাখ ৭৯ হাজার ৯৭৫ টাকা কম হয়েছে।
বিদায়ী সপ্তাহে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ২৫৫ পয়েন্ট বা পাঁচ দশমিক ৮১ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে চার হাজার ১৩০ পয়েন্টে। অপর সূচকগুলোর মধ্যে শরিয়াহ সূচক ৫৮ পয়েন্ট বা পাঁচ দশমিক ৭২ শতাংশ, ডিএসই-৩০ সূচক ৮১ পয়েন্ট বা পাঁচ দশমিক ৫২ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৯৫৮ ও ১৩৮২ পয়েন্টে।
বিদায়ী সপ্তাহে ডিএসইতে ৩৫৮টি প্রতিষ্ঠান শেয়ার ও ইউনিট লেনদেনে অংশ নিয়েছে। প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে দর বেড়েছে ২৫টির বা সাত শতাংশের, কমেছে ৩২৬টির বা ৯১ শতাংশের এবং অপরিবর্তিত রয়েছে সাতটির বা দুই শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর।
সপ্তাহজুড়ে এ ক্যাটাগরি শেয়ারের লেনদেন কমেছে। এ সময় এ ক্যাটাগরি শেয়ার লেনদেন হয়েছে এক হাজার ৬৯৫ কোটি ১০ লাখ টাকার বা ৮১ দশমিক ১৬ শতাংশ, বি ক্যাটাগরি শেয়ারের লেনদেন হয়েছে ৩৫৩ কোটি ৮১ লাখ টাকার বা ১৬ দশমিক ৯৪ শতাংশ, এন ক্যাটাগরি শেয়ারের লেনদেন হয়েছে ১৩ কোটি ৭৯ লাখ টাকার বা শূন্য দশমিক ৬৬ শতাংশ এবং জেড ক্যাটাগরির শেয়ার লেনদেন হয়েছে ২৫ কোটি ৮২ লাখ টাকার বা এক দশমিক ২৪ শতাংশ।
সপ্তাহজুড়ে লেনদেনের শীর্ষে ১০টি প্রতিষ্ঠান হলো- স্কয়ার ফার্মা, অরিয়ন ফার্মা, ওরিয়ন ইনফিউশন, লাফার্জহোলসিম, গ্রামীণ ফোন, বিকন ফার্মা, মুন্নু সিরামিক, ভিএফএস ডায়িং, খুলনা পাওয়ার ও খুলনা প্রিন্টিং।
অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে সপ্তাহজুড়ে ১৩২ কোটি ২১ লাখ ২২ হাজার ৭৯৯ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয়েছিল ৯২ কোটি ১৮ লাখ ৫৪ হাজার ৭০৪ টাকার। এ হিসাবে সপ্তাহের ব্যবধানে সিএসইতে টাকার পরিমাণে লেনদেন ৪০ কোটি ২ লাখ ৬৮ হাজার ৮৮ টাকা বা ৪৩ শতাশ বেড়েছে।
বিদায়ী সপ্তাহে সিএসইর সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৭৬১ পয়েন্ট বা পাঁচ দশমিক ৬৭ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ১২ হাজার ৬৪৩ পয়েন্টে। এছাড়া সিএসসিএক্স ৪৬২ পয়েন্ট বা পাঁচ দশমিক ৬৮ শতাংশ, সিএসই-৩০ সূচক ৫২৮ পয়েন্ট বা চার দশমিক ৫৭ শতাংশ, সিএসই-৫০ সূচক ৫৪ পয়েন্ট বা পাঁচ দশমিক ৬৯ শতাংশ এবং সিএসআই ৫৪ পয়েন্ট বা ছয় দশমিক ১৮ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে সাত হাজার ৬৬২ পয়েন্ট, ১১ হাজার ২৮ পয়েন্ট, ৮৯৯ পয়েন্ট ও ৮২০ পয়েন্টে।
বিদায়ী সপ্তাহে সিএসইতে ২৯৬টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের হাত বদল হয়েছে। এরমধ্যে দর বেড়েছে ২৬টির বা ৯ শতাংশ, কমেছে ২৬১টির বা ৮৮ শতাংশ এবং অপরিবর্তিত রয়েছে নয়টির বা তিন শতাংশ।

আপনার মতামত জানানঃ