সব সূচকেই উন্নতি কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষাবোর্ডের ফল

নিজস্ব প্রতিবেদক : সব সূচকেই উন্নতি কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষাবোর্ডের ফল ২০১৯ সালের উচ্চ মাধ্যমিক (এইচএসসি) ও সমমানের পরীক্ষায় সব সূচকেই বেড়েছে কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষাবোর্ডের ফলাফল। শুধু তাই নয়, দেশের আট শিক্ষাবোর্ডের চেয়ে বিভিন্ন সূচকে এগিয়েছে কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষাবোর্ড। মাদরাসা শিক্ষাবোর্ডে পাসের গড় হার ৮৮ দশমিক ২৭ শতাংশ। এর মধ্যে ছাত্র ৮৭ দশমিক ৯৯ শতাংশ এবং ছাত্রী ৮৯ দশমিক ২৭ শতাংশ।

কারিগরি শিক্ষাবোর্ডে পাসের গড় হার ৮২ দশমিক ৬২ শতাংশ। এর মধ্যে ছাত্র ৮০ দশমিক ৫৭ শতাংশ এবং ছাত্রী ৮৭ দশমিক ৫৮ শতাংশ।

মাদরাসায় ৮৮ শতাংশ এবং কারিগরি শিক্ষাবোর্ডে ৮২ শতাংশ পাস করলেও দেশের আট শিক্ষাবোর্ডে পাসের গড় হার ৭১ দশমিক ৮৫ শতাংশ। এর মধ্যে সবচেয়ে পাস করেছে কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডে, ৭৭ দশমিক ৭৪ শতাংশ।

উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় কারিগরি শিক্ষাবোর্ডে বেড়েছে শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণ। এ বছর পরীক্ষায় অংশ নেয় ১ লাখ ২৪ হাজার ৩২০ জন শিক্ষার্থী; গত বছর এ সংখ্যা ছিল ১ লাখ ১৮ হাজার।

অনুত্তীর্ণ পরীক্ষার্থীর সংখ্যাও কমেছে। এ বছর অনুত্তীর্ণ শিক্ষার্থীর সংখ্যা ২১ হাজার ৬০৫ জন, গত বছর এ সংখ্যা ছিল ২৮ হাজার ৯১১ জন।

এ বছর পাসের হার ৮২ দশমিক ৬২ শতাংশ, যা গত বছর ছিল ৭৫ দশমিক ৫০ শতাংশ। জিপিএ-৫ এর সংখ্যা এ বছর ৩ হাজার ২৩৬ জন, গত বছর ছিল ২ হাজার ৪৫৬ জন।

গত বছর একটি প্রতিষ্ঠানেও শতভাগ শিক্ষার্থী পাস করতে পারেনি। তবে এ বছর ১২১টি কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শতভাগ শিক্ষার্থী পাস করেছে।

গত বছর ৭টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের একজন শিক্ষার্থীও পাস করতে না পারলেও এ বছর সেই সংখ্যা নেমে এসেছে শূন্যের কোটায়।

কমে এসেছে বহিষ্কৃত পরীক্ষার্থীর সংখ্যাও। গত বছর ২৭৩ জন শিক্ষার্থী বহিষ্কার হলেও এ বছর ১১৯ জন শিক্ষার্থী বহিষ্কৃত হন।

আর মাদরাসা শিক্ষাবোর্ডে গত বছরের তুলনায় এ বছর শিক্ষার্থী পাসের হার বেশি। এ বছর ৮৮ দশমিক ৫৬ শতাংশ শিক্ষার্থী পাস করেছে, যেখানে গত বছর পাসের হার ছিল ৭৮ দশমিক ৬৭ শতাংশ। জিপিএ-৫ পাওয়ার সংখ্যাও বেড়েছে মাদরাসা শিক্ষাবোর্ডে। এ বছর জিপিএ-৫ পেয়েছেন ২ হাজার ২৪৩ শিক্ষার্থী; যেখানে গত বছর ছিল এ সংখ্যা ১ হাজার ২৪৪ জন।

মাদরাসার ৬১৫টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে কোনো শিক্ষার্থী অকৃতকার্য বা ফেল করেনি; যেখানে গত বছর এ সংখ্যা ছিল ২৮৮টি। অন্যদিকে কারিগরি শিক্ষাবোর্ড (১২১টি) এবং আটটি সাধারণ শিক্ষাবোর্ডের (১৭১টি) চেয়ে এ ক্ষেত্রে এগিয়ে মাদরাসা শিক্ষাবোর্ড। একজন শিক্ষার্থী পাস করেনি মাদরাসা শিক্ষবোর্ডের এমন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ৭টি। গত বছর এ সংখ্যা ছিল ১৩টি।

পরীক্ষা দিতে গিয়ে গত বছরের চেয়ে এ বছর মাদরাসা শিক্ষার্থীরা কম বহিষ্কার হয়েছেন। এ বছর বহিষ্কার মাদরাসা শিক্ষার্থীর সংখ্যা ১৩১ জন, গত বছর এ হার ছিল ২৪৪ জন।

আজ বুধবার (১৭ জুলাই) সকাল ১০টায় শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি শিক্ষাবোর্ডের প্রধানদের নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে ফল হস্তান্তর করেন। এরপর সংবাদ সম্মেলন করে ফল ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী। দুপুর সাড়ে ১২টায় সংবাদ সম্মেলনে বিস্তারিত ফলাফল তুলে ধরেন শিক্ষামন্ত্রী।

আপনার মতামত জানানঃ