হরিপুর উপজেলায় দুই পক্ষে সংঘর্ষ এড়াতে ১৪৪ ধারা জারি

প্রকাশিতঃ ৮:০০ অপরাহ্ণ, শুক্র, ৮ নভেম্বর ১৯

মোঃ আনোয়ার হোসেনঃ ঠাকুরগাও জেলা হরিপুর উপজেলায় ৩নং বকুয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের রুহিয়া নিম্ন মাধ্যমিক স্কুল মাঠে বর্ধিত সভাকে ঘিরে ঐ ঘটনার জেরে  আওয়ামীলীগের দুই গ্রুপের  সংঘর্ষের আশংঙ্কায়। হরিপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আব্দুল করিম জনগণের জানমালে নিরাপত্তার জন্য হরিপুর উপজেলায় অনিদির্ষ্ট কালের  জন্য,সকাল ১০টায় বুধবার সব ধরনে সভা সমাবেশের উপর ১৪৪ ধারা জারি করেন।
৬-১১-২০১৯ ইং তারিখের  বকুয়া ইউনিয়নে আওয়ামীলীগে সভাপতি মোঃ আবু তাহের রেজা  বর্ধিত সভা আহবান করিলে ঘটনার সুত্রপাত,ঐ বিষয় সম্পর্কে জানতে চাওয়া হলে সভাপতি সাহেব জানান,গত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে যারা নৌকার বিপক্ষে নির্বাচন করে, তারাই এই বর্ধিত সভাটিকে ভুন্ডুল করার জন্য হুমকি ধামকি দিচ্ছিল,আমরা তারপরও সফল ভাবে সভাটি শেষ করেছি।
বকুয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক মোঃ জহিরুল ইসলাম জানান, যারা ত্যাগী নেতা দাবি করে,তারা ইউপি ও উপজেলা নির্বাচনে নৌকার নির্বাচন করেনি।কেউ নব আওয়ামীলীগার ২০০১ সালে বি, এন,পির নেতা ছিলেন,কেউ ২০০৮ সালে  অন্য দলের হয়ে কাজ করেছিল,আবার কারো পুরো পরিবার বি এন পি। তারাই দলে এসে বিশৃংখলা করছে,এই বিষয়ে উপজেলা আওয়ামীলীগ এর সাধারণ সম্পাদকের নিকট প্রশ্ন করা হলে তিনি জানান,গত ইউনিয়ন পরিষদ ও উপজেলা পরিষদ নির্বাচন এর সময় দলে শৃংখলা ভঙ্গ করে নির্বাচন করেছিল। তারাই দলের মধ্যে আধিপত্য বিস্তারের চেষ্টা করছে।
তাদের বিরুদ্ধে গঠনতন্ত্র অনুযায়ী জেলা ও কেন্দ্রে ওদের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করেছি,কেন্দ্রের নির্দেশনা মোতাবেক উপজেলা ও ইউনিয়ন  সম্মেলন করার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছি, ঠিক সেই সময় তারা এলাকায় ত্রাসের রামরাজত্ব করতে চায়।কেন্দ্রের নিদের্শনা মোতাবেক  যারা বিশৃংখলা করছে বা দলের বিশৃংখলা সৃষ্টির করে বলয় করতে চায় তাদের দলের পদ পদবি দেওয়া হবে না।তাই তারা সারা উপজেলা ত্রাসের রাজত্ব করে ওপেন অস্ত্র ওচিয়ে উপজেলা পরিষদের মহড়া দিচ্ছে, জান মালের নিরাপত্তা স্বার্থে উপজেলায় নির্বাহী অফিসার মহোদয় ১৪৪ ধারা জারি করেছে।

আপনার মতামত জানানঃ