১২৮০ কোটি ক্রয় প্রকল্প অনুমোদন

১২৮০ কোটি ক্রয় প্রকল্প অনুমোদন

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক: বেলারুশ থেকে সাড়ে চার লাখ মেট্রিক টন মিউরেট অব পটাশ (এমওপি) সার আমদানির প্রস্তাবসহ মোট চারটি ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা। এতে মোট ব্যয় হবে এক হাজার ২৭৯ কোটি ৯২ লাখ টাকা।

বুধবার (০৭ আগস্ট) সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সম্মেলন কক্ষে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় এ সংক্রান্ত প্রস্তাবগুলো অনুমোদন দেওয়া হয়।

সভা শেষে অর্থমন্ত্রী সাংবাদিকদের জানান, আজকের সভায় মোট চারটি প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে একটি হলো- রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে বেলারুশিয়ান পটাশ কোম্পানি (বিপিসি) ও বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশনের (বিএডিসি) মধ্যে স্বাক্ষরিত চুক্তির আওতায় সাড়ে চার লাখ মেট্রিক টন মিউরেট অব পটাশ (এমওপি) সার আমদানির প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়। এতে ব্যয় হবে এক হাজার ১০৮ কোটি ৯৯ লাখ ৯১ হাজার ২৫০ টাকা। প্রতি মেট্রিক টনের দাম ধারা হয়েছে ২৯১ মার্কিন ডলার। ২০১৮ সালের চুক্তির কার্যক্রম সম্পন্ন হওয়ায় চুক্তির শর্তগুলো অভিন্ন রেখে গত ৮ জুলাই ফের চুক্তি সম্পাদন করা হয়। কৃষি মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশন প্রস্তাবটি বাস্তবায়ন করবে।

তিনি জানান, চার লাখ ২৫ হাজার মেট্রিক টন ইউরিয়া সার আমদানির একটি প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। প্রাথমিকভাবে কাতারের কাতার কেমিক্যালস পেট্রোলিয়াম লিমিটেড থেকে ২৫ হাজার মেট্রিক টন ইউরিয়া সার আনার প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এতে প্রতি মেট্রিক টনের দাম ধরা হয়েছে ২৯৩ মার্কিন ডলার। সে হিসেবে ২৫ হাজার মেট্রিক টনের দাম হবে ৬২ কোটি ১৮ হাজার ৭৫০ টাকা। বাস্তবায়নকারী সংস্থা কৃষি মন্ত্রণালয়। পর্যায়ক্রমে বাকি সার আনা হবে। এর জন্য আর অনুমোদন নিতে হবে না। সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়কে প্রয়োজন সাপেক্ষে আনার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। তারা যখন ইচ্ছে তখন সার আনতে পারবে। তবে যে সময়ে আনবে সে সময়ের বাজারে চলতি দামেই আনতে হবে।

সভায় অনুমোদিত অন্যান্য প্রস্থাবগুলো হলো, বিদ্যুৎ ও জ্বালানির দ্রুত সরবরাহ বৃদ্ধি (সংশোধন) আইন ২০১৮ এর আওতায় রুপকল্প-২ শীর্ষক প্রকল্পের অধীন জকিগঞ্জ-১ কূপ খনন কার্যক্রমের জন্য ড্রিল বিট, কেসিং এক্সেসরিজ ও লিনার হেঙ্গার ক্রয়ের প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়ছে। এতে ব্যয় হবে এক কোটি ৮৭ লাখ ৫৫ হাজার ৩০০ টাকা। এজন্য বেনডোর লিস্ট অনুযায়ী দরপত্র আহ্বান করলে ৭টি প্রতিষ্ঠান যাতে দরপত্র পাওয়া যায়। কারিগরি উপ-কমিটির সুপারিশকৃত সর্বনিন্ম দরদাতা প্রতিষ্ঠান ন্যাশনাল ওয়েল প্রাইভেট লিমিটেড, খুলনা লুমপুর এবং পানামার স্কল্যাবারগার সেকো ইন্ডাস্ট্রিজ থেকে কেনা হবে। বাস্তবায়নকারী সংস্থা জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের বাপেক্স।

এছাড়া দুই বছর মেয়াদে বিআরটিএ’র ঢাকা মেট্রো সার্কেল ১, ২ ও ৩ ( মিরপুর, ইকুরিয়া ও উত্তরা) এর মোটরযান সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ ডকুমেন্ট ডিজিটাইজ করে আর্কাইভ আকারে সংরক্ষণ এবং ব্যবস্থাপনা সিস্টেম সার্ভিস তৎক্ষণাৎ ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এতে ব্যয় হবে ২৮ কোটি ৫ লাখ ৮১ হাজার ৭২২ টাকা। সার্ভিস প্রোভাইডার ও ভেন্ডার নির্বাচনের জন্য এক্সপ্রেশন অব ইন্টারেস্ট (ইওল) পরপর দুইবার আহ্বান করলে ১৬টি আবেদন পাওয়া যায়। প্রস্তাব মূল্যায়ন কমিটি সুপারিশকৃত একমাত্র যোগ্যতা অর্জনকারী প্রতিষ্ঠান কম্পিউটার নেটওয়ার্ক সিস্টেম লিমিটেড (সিএনএস)। বাস্তবায়নকারী সংস্থা বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ)।

আপনার মতামত জানানঃ