৪৫ রানে অলআউট উইন্ডিজ : রেকর্ড জয় ইংল্যান্ডের

স্পোর্টস ডেস্ক: টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটটাকে ধরা হয় ক্যারিবীয়দেরই খেলা। সারা বিশ্বজুড়ে যতো টি-টোয়েন্টি লিগ হয় তাতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের খেলোয়াড়দের থাকে সরব উপস্থিতি। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের ফেরিওয়ালা খ্যাত ক্রিস গেইলও এই উইন্ডিজ দলেরই খেলোয়াড়। যিনি কি-না ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে গড়েছিলেন ছক্কার বিশ্বরেকর্ড।

কিন্তু নিজের পছন্দের টি-টোয়েন্টি ফরম্যাট আসতেই যেন ম্লান এ ব্যাটিং দৈত্য। কথা বলতে ভুলে গিয়েছে অন্য ব্যাটসম্যানদের উইলোও। আর তাতেই আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি দ্বিতীয় সর্বনিম্ন রানে অলআউট হওয়ার রেকর্ডটা নিজেদের করে নিয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

শুক্রবার রাতে সেন্ট কিটসের ওয়ার্নার পার্কে ইংল্যান্ডের করা ১৮২ রানের জবাবে উইন্ডিজের ইনিংস থেমেছে মাত্র ৪৫ রানে। যা কি-না সবমিলিয়ে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে দ্বিতীয় সর্বনিম্ন দলীয় সংগ্রহ। ২০১৪ সালে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৩৯ রানে অলআউট হয়ে এ রেকর্ডে সবার ওপরের নামটি নেদারল্যান্ডসের।

তবে আইসিসির পূর্ণ সদস্য দেশগুলোর মধ্যে ওয়েস্ট ইন্ডিজের এই ৪৫ রানই সর্বনিম্ন দলীয় সংগ্রহ। এতদিন ধরে যা ছিলো নিউজিল্যান্ডের নামের পাশে। ২০১৪ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে চট্টগ্রামেই ৬০ রানে অলআউট হয়েছিল কিউইরা। এই বিব্রতকর রেকর্ড থেকে তাদের মুক্তি দিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

প্রথম ম্যাচ জিতে আগেই সিরিজ জয়ের পথ সহজ করেছিল ইংল্যান্ড। দ্বিতীয় ম্যাচেও প্রথম ইনিংসেই জয়ের কাজটা অর্ধেক করে ফেলে তারা। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৮২ রানের সংগ্রহ দাঁড় করায় ইয়ন মরগ্যানের দল।

ইংলিশদের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান জো রুট ৭ চারের মারে ৪০ বলে খেলেন ৫৫ রানের ইনিংস। তবে শেষদিকে ঝড় তোলেন স্যাম বিলিংস। মাত্র ৪৩ বলে ১০টি চারের সঙ্গে ৩টি বিশাল ছক্কা হাঁকিয়ে করেন ৮৭ রান। তার ইনিংসেই মূলত ১৮২ পর্যন্ত যায় ইংল্যান্ডের সংগ্রহ।

রান তাড়া করতে নেমে কখনোই মনে হয়নি জয়ের আশা রয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের। অবশ্য থাকবেই বা কী করে? মাত্র ২০ রানেই যে তারা হারিয়ে ফেলে প্রথম পাঁচ ব্যাটসম্যানকে। ক্রিস গেইল (৫), শাই হোপ (৭), ড্যারেন ব্রাভো (০), জেসন হোল্ডার (০) এবং নিকলাস পুরানের (১) মধ্যে কেউই দুই অঙ্কে যেতে পারেননি।

শুরুতেই এমন ধাক্কার পর ঘুরে দাঁড়াতে প্রয়োজন ছিলো স্পেশাল কোনো ইনিংস। যা পারেননি তিন নম্বরে নামা শিমরন হেটমায়ার। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ১০ রান করে আউট হন তিনি। শেষদিকে ৪ বলে ১০ রান করেন কার্লস ব্রাথওয়েটও। এ দুইজন ছাড়া কেউই পারেননি দুই অঙ্কে যেতে।

মাত্র ১১.৪ ওভারে ৪৫ রান তুলতেই অলআউট হয় উইন্ডিজরা। ১৩৭ রানের বিশাল ব্যবধানে জয় ইংল্যান্ড। যা কি-না ইংলিশদের ইতিহাসে সর্বোচ্চ ব্যবধানের জয়। এছাড়া আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে এর চেয়ে বড় ব্যবধানের জয়ের রেকর্ড রয়েছে কেবল ৩টি।

ইংলিশদের পক্ষে বল হাতে সবচেয়ে সফল ক্রিস জর্ডান। ২ ওভারে মাত্র ৬ রান খরচায় ৪ উইকেট নেন এ ডানহাতি পেসার। এছাড়া আদিল রশিদ, লিয়াম প্লাঙ্কেট এবং ডেভিড উইলি নেন ২টি করে উইকেট।

আপনার মতামত জানানঃ