ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  জাতীয়   »   গামকা অফিস স্থানান্তরে ১৫ দিনের আলটিমেটাম

গামকা অফিস স্থানান্তরে ১৫ দিনের আলটিমেটাম

September 25, 2016 - 1:15 PM

নিজস্ব প্রতিবেদক : মধ্যপ্রাচ্যে গমনেচ্ছুদের মেডিক্যাল চেকআপে অনুমোদিত মেডিক্যাল সেন্টারগুলোর সমন্বয়কারী সংস্থা- জিসিসি অ্যাপ্রুভড মেডিক্যাল সেন্টারস অ্যাসোসিয়েশনের (গামকা) কার্যালয় স্থানান্তরে ১৫ দিন সময় বেঁধে দিয়েছেন মেয়র আনিসুল হক।

রোববার এক আকস্মিক পরিদর্শনে গিয়ে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র প্রতিষ্ঠানটিকে এ আলটিমেটাম দেন।

রাজধানীর গুলশান-২ এর ৯৪ নম্বর সড়কে প্রতিষ্ঠানটি প্রায় ১২ বছর ধরে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করছে। তবে গত কয়েক বছর ধরে বিপুল জনসমাগম হওয়ায় পার্শ্ববর্তী রাস্তা ছাড়িয়ে, বিভিন্ন অলিগলি এবং প্রধান সড়কে ৬ থেকে ৭ হাজার লোক সারিবদ্ধ হয়ে দাঁড়িয়ে থাকে।

এ ছাড়া চার থেকে পাঁচ দিন একই স্থানে (সড়কে) অপেক্ষায় থাকেন বিদেশ গমনেচ্ছুরা। এর ফলে স্থানীয় বাসিন্দাদের চলাফেরায় সমস্যা হয়। বিষয়টি নিয়ে একাধিকবার সিটি করপোরেশনে অভিযোগ জানান স্থানীয় বাসিন্দারা।

স্থানীয়দের অভিযোগের পরিপেক্ষিতে ডিএনসিসির মেয়র প্রতিষ্ঠানটি পরিদর্শনে গেলে উপস্থিত কয়েক হাজার বিদেশ গমনেচ্ছু নারী ও পুরুষ বিভিন্ন বিষয়ে অভিযোগ জানান।

এসব অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে প্রতিষ্ঠানটির কার্যালয় অন্য স্থানে সরিয়ে নেওয়ার জন্য ১৫ দিন সময় বেঁধে দেন। এ সময় তিনি বলেন, ‘সাত দিন পর আবারও পরিদর্শনে আসব।’

এর আগে মেয়র কাকলী থেকে বনানী ১১ ও ১৮ নম্বর সড়ক হয়ে গুলশান ৫০ নম্বর সড়ক পরিদর্শন করেন।

এ সময় ফুটপাতে বিদ্যমান সিকিউরিটি পোস্ট ও সিকিউরিটি ব্লক অপসারণ এবং ইলেকট্রিক পোলগুলো সুবিধাজনক স্থানে স্থানান্তরের নির্দেশ দেন মেয়র আনিসুল হক।

ডিএনসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মেসবাহুল ইসলাম, প্রধান প্রকৌশলী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সাঈদ আনওয়ারুল ইসলাম, অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী সৈয়দ কুদরত উল্লাহসহ ডিএনসিসির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, ডিএমপির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং গুলশান সোসাইটির মহাসচিব উপস্থিত ছিলেন।

আপনার মতামত জানানঃ