ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  জাতীয়   »   প্রতি ৫০ জনের জন্য একটি পানির পয়েন্ট তৈরি করা হবে

প্রতি ৫০ জনের জন্য একটি পানির পয়েন্ট তৈরি করা হবে

March 21, 2017 - 4:00 PM

নিজস্ব প্রতিবেদক : ‘প্রতি ৫০ জনের জন্য একটি পানির পয়েন্ট তৈরি করা হবে। ওই পানির কেন্দ্রকে ঘিরে ভবিষ্যতে জনবসতি গড়ে তোলার জন্য জনগণকে উদ্বুদ্ধ করা হবে। পানিকে কেন্দ্র করে গড়ে তোলা হবে গ্রাম ব্যবস্থা।’

মঙ্গলবার রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে বিশ্ব পানি দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন এসব কথা বলেন। ঢাকা, চট্টগ্রাম, খুলনা ও রাজশাহী ওয়াসা এবং ইউনিসেফের উদ্যোগে এ সেমিনার হয়।

সেমিনারে মন্ত্রী বলেন, ‘জনসংখ্যার ঘনত্বের তুলনায় আমাদের পানির উৎস সীমিত। বৃহৎ জনসংখ্যাকে সুপেয় পানি প্রদান করতে গিয়ে ভূগর্ভস্থ পানির অধিক ব্যবহারের ফলে পানির স্তর ক্রমশ নিচে নেমে যাওয়ায় জনগণ আর্সেনিক ও অন্যান্য দূষণ-ঝুঁকির মুখে পড়েছে। এ অবস্থা থেকে উত্তরণের জন্য ভূপৃষ্ঠের পানির ব্যবহার বাড়াতে হবে। দেশব্যাপী প্রাকৃতিক জলাধার রক্ষার মাধ্যমে এবং পুকুর ও খাল খনন করে ভূপৃষ্ঠের পানি ব্যবহার করতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘সমন্বিত ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে নদী খনন করা হবে। প্রতি ৫০ জনের জন্য একটি পানির পয়েন্ট তৈরি করা হবে। ওই পানির কেন্দ্রকে ঘিরে ভবিষ্যতে জনবসতি গড়ে তোলার জন্য জনগণকে উদ্বুদ্ধ করা হবে। পানিকে কেন্দ্র করে গ্রাম ব্যবস্থা গড়ে তোলা হবে। যাতে নাগরিকগণকে প্রয়োজনীয় সকল সুযোগ-সুবিধা খুব সহজেই প্রদান করা যায়। ভূগর্ভস্থ পানির পরিবর্তে ভূউপরিভাগের পানির ব্যবহার বাড়িয়ে আগামী ৫ থেকে ৭ বছরের মধ্যে ভূগর্ভস্থ পানির স্তর আগের পর্যায়ে নিয়ে আসা হবে।’

পানির অপচয়ের প্রবণতা আমাদের রক্তে মিশে গেছে বলে মন্তব্য করেন খন্দকার মোশাররফ হোসেন। এ প্রবণতা থেকে বেরিয়ে এসে পানির সুষম ব্যবহারের জন্য সবার প্রতি আহ্বান জানান মন্ত্রী।

মন্ত্রী দৈনন্দিন গৃহস্থালি ও শিল্প কারখানায় ব্যবহার্য পানি যেন অপরিশোধিত অবস্থায় প্রাকৃতিক জলাধারে না মেশে, সেদিকে সংশ্লিষ্ট সকলকে সজাগ থাকার নির্দেশনা দেন। তিনি বলেন, পানি ব্যবস্থাপনায় বাংলাদেশ অচিরেই বিশ্বে শীর্ষ কাতারে অবস্থান করবে।

তিনি বলেন, দেশের সকল জনগণের জন্য সুপেয় পানি নিশ্চিত করা হবে। পানির সুষম ব্যবহার না করতে পারলে ভবিষ্যতে জনগণকে রক্ষা করা যাবে না। সবার জন্য সুপেয় পানির সংস্থান করতে না পারলে নৈতিকভাবে আমরা অপরাধী হব।

ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী তাকসিম এ খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন- প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রার (এসজিডি) মুখ্য সমন্বয়ক মো. আবুল কালাম আজাদ, স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব আবদুল মালেকসহ চট্টগ্রাম, খুলনা ও রাজশাহী ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালকরা।

আপনার মতামত জানানঃ