বাংলাদেশ ও ভারতের সেনাপ্রধানের সৌজন্য সাক্ষাৎ

নিজস্ব প্রতিবেদক : বাংলাদেশের সেনাপ্রধান জেনারেল আবু বেলাল মোহাম্মদ শফিউল হকের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছেন ঢাকায় সফররত ভারতীয় সেনাপ্রধান জেনারেল বিপিন রাওয়াত।

শনিবার সকাল ৮টা ১০ মিনিটে ঢাকা সেনানিবাসে সেনা সদর দপ্তরে এই সাক্ষা‍ৎ হয়।

জেনারেল বিপিন রাওয়াত ও তার স্ত্রী এবং চার সদস্যের প্রতিনিধিদল বাংলাদেশের সেনাবাহিনী প্রধানের আমন্ত্রণে তিনদিনের সফরে শুক্রবার সকাল ৯টার দিকে বাংলাদেশে আসেন। বিপিন রাওয়াত সেনাপ্রধান হওয়ার পর এটি তার প্রথম বিদেশ সফর।

সৌজন্য সাক্ষাতের আগে ভারতীয় সেনাপ্রধান ঢাকা সেনানিবাসে শিখা অনির্বাণে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এরপর বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর একটি চৌকস দল ঢাকা সেনানিবাসে সেনাকুঞ্জে তাকে গার্ড অব অর্নার দেয়।

দিনের সূচি অনুযায়ী শনিবার ভারতীয় প্রতিনিধি দল গাইবান্ধা জেলার গোবিন্দগঞ্জে যাবেন। সেখানে ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময়ের একটি যুদ্ধক্ষেত্র পরিদর্শণ করবেন। পরে তিনি বগুড়া সেনানিবাস পরিদর্শন করবেন।

জেনারেল বিপিন রাওয়াত ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে বাংলাদেশের পক্ষে যুদ্ধে অংশ নিয়েছিলেন। তার নেতৃত্বাধীন ব্যাটালিয়ন বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলে পীরগঞ্জ, ঘোড়াঘাট, গোবিন্দগঞ্জ, শাওলকান্দি, মহাস্থান সেতু ও বগুড়ায় যুদ্ধে অংশ নেয়।

বিকেল ৩টায় বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে জেনারেল বিপিন রাওয়াতের সাক্ষাতের কথা রয়েছে।

এদিকে চলতি এপ্রিল মাসেই ভারত সফরে যাচ্ছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এই সফরকালে দুই দেশের মধ্যে প্রতিরক্ষা সহযোগিতা চুক্তি স্বাক্ষরের কথা রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সফরের আগে বাংলাদেশে সফরে এলেন ভারতের সেনাবাহিনী প্রধান।

ঢাকায় ভারতীয় হাইকমিশন জানিয়েছে, দুই দেশের সশস্ত্র বাহিনীর ঊধ্বর্তন কর্মকর্তাদের মধ্যে চলমান সফর বিনিময়ের অংশ হিসেবে ভারতীয় সেনাপ্রধানের এই ঢাকা সফর। সর্বশেষ ২০১৫ সালের সেপ্টেম্বরে বাংলাদেশের সেনাপ্রধান ভারত সফরে গিয়েছিলেন। বিমান বাহিনী ও নৌ বাহিনী প্রধানরাও ২০১৬ সালে ভারত সফর করেন। ভারতের বিমান বাহিনী এবং নৌ-বাহিনী প্রধানও ২০১৬ সালে বাংলাদেশ সফর করেন।